প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেয়েছেন জগন্নাথপুর এর আরশ আলী 

প্রকাশিত: ৭:০৬ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০২২

প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেয়েছেন জগন্নাথপুর এর আরশ আলী 

 

হুমায়ূন কবীর ফরীদি, জগন্নাথপুর প্রতিনিধিঃ

 

 

জগন্নাথপুর এর কৃতি সন্তান আরশ আলী প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাওয়ায় অভিনন্দিত।

গত ২৩ শে ডিসেম্বর বাংলাদেশ সরকার এর মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে প্রকাশিত এক গেজেটে বাংলাদেশ গনতন্ত্রী পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রবীণ রাজনীতিবিদ ব্যারিষ্টার মোহাম্মদ আরশ আলীকে প্রবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। তাঁর সাথে একই গেজেটে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনকেও একই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।

সুনামগঞ্জের প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর উপজেলার কৃতি সন্তান ব্যারিষ্টার মোহাম্মদ আরশ আলী ১৯৭১ সালে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ এর জন্য সূদুর লন্ডনে অধ্যায়নকালীন সময়ে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়।সিলেটের সর্বজন শ্রদ্ধেয় প্রবীন রাজনীতিবিদ ও সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব মোহাম্মদ আরশ আলী

যুক্তরাজ্যে বার-অ্যাট-ল ডিগ্রী অর্জনের জন্য পড়াশুনা করছিলেন। তাঁর এই অবস্থানকালীন সময়ে ছাত্র ইউনিয়নের একজন নেতা হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে যুক্তরাজ্যে ছাত্র সংগ্রাম পরিষ এর সক্রিয় কর্মী হয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশের পক্ষে প্রস্তাব পাশ,বাংলাদেশে গণহত্যা বন্ধ, পাকিস্তানে সব রকমের সাহায্য বন্ধ ও বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদান সহ স্বাধীনতার স্বপক্ষে বিশ্ব জনমত গঠনে ব্যাপক ভূমিকা রাখেন।

এসময়ে তৎকালীন ন্যাপ নেতা নিখিলেশ চক্রবর্তী, ছাত্র ইউনিয়ন নেতা মাহমুদ এ রউফ ও হাবিব রহমান সহ অন্যান্যরা ছিলেন ব্যারিষ্টার মোঃ আরশ আলীর সহযোদ্ধা।

এদিকে ব্যারিষ্টার মোঃ আরশ আলী প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাওয়ায় বিভিন্ন মহল এর পক্ষ থেকে বিপুল ভাবে অভিনন্দিত হয়েছেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় প্রবীন এই নেতা।তাঁর নিজ রাজনৈতিক দল গণতন্ত্রী পার্টির পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলা হয়েছে, দীর্ঘ পঞ্চাশ বছর পর হলেও ব্যারিষ্টার আরশ আলীকে তাঁর প্রাপ্য সম্মান দেওয়া আমরা সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞ।

গণতন্ত্রী পার্টি ছাড়াও সিলেটের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এর নেতাকর্মী বৃন্দও ব্যারিষ্টার মোঃ আরশ আলীর এই স্বীকৃতি প্রাপ্তিতে তাকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

 

হাবিবা আক্তার ///

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

%d bloggers like this: