জৈন্তাপুরে জেলা প্রশাসক: দারিদ্র্যের দোহাই দিয়ে অবৈধ কাজ করা যাবে না

প্রকাশিত: ৫:২০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০২২

জৈন্তাপুরে জেলা প্রশাসক: দারিদ্র্যের দোহাই দিয়ে অবৈধ কাজ করা যাবে না

জৈন্তাপুর উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের বাস্তবায়ন অগ্রগতি নিয়ে সকল বিভাগীয় কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় করেন সিলেটের জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ মজিবুর রহমান।

 

জৈন্তাপুরে জেলা প্রশাসক: দারিদ্র্যের দোহাই দিয়ে অবৈধ কাজ করা যাবে না।

 

সোহেল আহমেদ, জৈন্তাপুর(সিলেট) প্রতিনিধিঃ

 

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের বাস্তবায়ন অগ্রগতি নিয়ে সকল বিভাগীয় কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে জেলা প্রশাসকের মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে ৷

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) দুপুর ১২ টায় সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজের পরিদর্শনে আসেন ৷ তিনি পরিদর্শনের শুরুতেই জৈন্তাপুর মডেল থানায় মহিলা পুলিশ সদস্যদের জন্য নির্মিত ব্যারাক পরিদর্শন, লাল শাপলা বিলের বাঁধ পরিদর্শন, লক্ষীপুর রাস্তার উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করেন ৷ বিকাল ২টায় জৈন্তাপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পরিষদ হল রুমে ইউএনও বশিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান ৷ বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন- জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগের সভাপতি কামাল আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেযারম্যান পলিনা রহমান পলিন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) রিপামনি দেবী, জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর আহমদ, ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইন্তাজ আলী, ফখরুল ইসলাম, মো. সুলতান করিম, বাহারুল আলম বাহার, মো. রফিক আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ, জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি নূরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মো. আনোয়ার হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, মানবাধিকার কর্মী ফনি দে, রুহিনী রঞ্জন দে, মাষ্টার আব্দুল জলিল, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সালাউদ্দিন, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, ঝুটন চন্দ্র সরকার সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগন, সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন ৷

মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেন, সীমান্ত চোরাচালান, শ্রীপুর পাথর কোয়ারী ও সারী নদীর মামলা ভুক্ত সারী-১মামলা প্রত্যাহার, বিজিবি কর্তৃক নিরীহ মানুষদের উপর হয়রানী বন্ধ, বিজিবি কর্তৃক সীমান্ত চোরাচালান বাণিজ্যের চাঁদাবাজী বন্ধ করতে, বন্যা দুর্গতদের সহয়তা প্রদান, বাঁধ নির্মাণ, রাস্তাঘাট নির্মাণ বিষয়ে আলোচনা করেন ৷ জেলা প্রশাসক মুজিবর রহমান বলেন, দারিদ্রকে পুজি করে আবেগ তাড়িত হয়ে কোন প্রকার অবৈধ কাজ করা যাবে না ৷ সরকারের পক্ষ হতে যে সমস্ত কাজকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে সে গুলোকে মানতে হবে ৷ জৈন্তাপুরের বিভিন্ন স্থানে চাষাবাদ যোগ্য আবাদি জমি অনাবাদি পড়ে রয়েছে সে গুলোকে কাজে লাগানোর অনুরোধ করেন ৷ কোয়ারী যেহেতু সরকারী নির্দেশনায় বন্দ রয়েছে সেখান হতে কোন বাহিনীর মদদে কিংবা অন্য কোন উপায়ে কাজ করা হতে বিরত থাকার আহবান জানান৷

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

%d bloggers like this: