কানাইঘাটে মাদ্রাসাছাত্রদের বলাৎকার/ সভাপতির ছত্রছায়ায় বেপরোয়া ছিলেন মুহতমিম

প্রকাশিত: ২:৫০ অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০২০

কানাইঘাটে বলাৎকারের শিকার হয়েছেন কয়েকজন মাদ্রাসা ছাত্র । আর এসব ঘটনার  বিচার চাওয়ায় মাদ্রাসা সভাপতি  আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ভিকটিম পরিবারের সদস্যরা।  এমন অভিযোগ ভিকটিমের স্বজনের।  এই ঘটনায় তোপেরমুখে মাদ্রাসা ছেড়ে  পালাতে হলো মুহতমিম  সোহেল আহমদকে।  সমপ্রতি  সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে   আসায় তোলপাড় শুরু হয় কানাইঘাটের বাউরভাগ এলাকায় । বাউরভাগ নয়াগ্রাম কাসিমুল উলুম মাদ্রাসায় ঐ প্রতিষ্টানের শিক্ষক সোহেল (মুহতমীম) কতৃক বলাৎকারের শিকার হন পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র রহিম১২ (ছদ্দ নাম)া এমন অভিযোগ করেন ভিকটিমের দাদা। আপাতত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই স্বজন এই ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি জানান আমি প্রতিবাদের ভাষা হারিয়ে ফেলেছি নিরাপত্তাজনীত কারণে।  ঘটনার পর গা ঢাকা দিয়েছেন মুহতমিম মাওলানা সুহেল আহমদ। একে একে কয়েকবার বলাৎকারের ঘটনার শিকার হয়ে প্রতিকার চান মাদ্রাসা সভাপতি সিরাজ মাষ্টারের কাছে অভিবাবকর। কিন্তু কেউ পাননি বিচার।উল্টো তাদেরকে নানা হুমকি দেওয়া হয়। আর  নানা অপকর্মের হোতা  সিরাজ বলেন ওরা তো মেয়ে হলে কথা, জাত গেছেগিনী।এগুলো বাদ দাও।  সিরাজ উপজেলার দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও এলাকার দূরদান্ত লোক হওয়ায় তার সকল অপকর্মের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে সাহস করছেন না। এ বিষয়টি অবহিত  হয়ে সরেজমিনে গেলে বেরিয়ে আসে আরো অজানা অনেক তথ্য। ভিকটিম পরিবাররের অভিযোগেের  অডিও  ভিডিও আছে প্রতিবেদকের কাছে।  আর বলাৎকারের শিকার মাদ্রাসা ছাত্রদের কয়েকজন ইতিমধ্যে মাদ্রাসা ছেড়ে   অন্য মাদ্রাসায় ভর্তি হয়েছেন বলে এলকাবাসী জানান।   বিস্তারিত  জানতে চোখ রাখুন আগামী পর্বেে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

%d bloggers like this: