যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে দুপক্ষের গোলাগুলিতে নিহত ২

প্রকাশিত: ৯:৩৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২২

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে দুপক্ষের গোলাগুলিতে নিহত ২

দিনরাত ডেস্কঃ

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে একটি পার্কে দুপক্ষের সদস্যদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুজন নিহত এবং পাঁচজন আহত হয়েছেন। খবর রয়টার্স।

সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, লস অ্যাঞ্জেলেসের সান পেড্রোর পেক পার্কে গাড়ির প্রদর্শনী চলছিল। সেখানেই রোববার (২৪ জুলাই) দুপক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, পার্কে গোলাগুলির ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি তারা। পুলিশের ধারণা, পেক পার্কের দুপক্ষের বিরোধ থেকেই এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে।

লস অ্যাঞ্জেলেস পুলিশের ক্যাপ্টেন কেলি মুনিজ জানিয়েছেন, আমরা আলামত সংগ্রহের জন্য পার্কটি দ্রুত খালি করে দিয়েছি। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

দমকল বিভাগের মুখপাত্র ব্রায়ান হামফ্রে বলেন, প্যারামেডিকরা সাতজনকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান এবং তাদের মধ্যে দুজন পরে মারা যান। দুজনের একজন পুরুষ ও একজন মহিলা।

তিনি আরও বলেন, গুলিবর্ষণের শিকার হয়েছেন চারজন পুরুষ এবং তিনজন নারী। তাদের প্রত্যেকের বয়স ২৩ থেকে ৫৪ বছর। তবে সংঘর্ষের কারণ সম্পর্কে তিনি কোনো তথ্য দিতে পারেননি।

এদিকে ২২ জুলাই দেশটির আইওয়া অঙ্গরাজ্যে একই পরিবারের তিনজনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, অঙ্গরাজ্যটির একটি পার্ক থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে ছয় বছর বয়সী এক শিশুও রয়েছে। একই পার্কে গুলিবিদ্ধ আরও একজনের মরদেহ পাওয়া গেছে। পুলিশের ধারণা, তিনজনকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছে বন্দুকধারী। তবে, এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

একই দিন ওয়াশিংটনেও বন্দুক হামলায় হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনায় একজন নিহত ও পাঁচজন আহত হয়েছেন। গুরুতর অবস্থায় দুজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এক বিবৃতিতে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানায়, একটি জনসমাগমস্থলে এ বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে। এতে একাধিক হামলাকারী জড়িত থাকতে পারে বলে সন্দেহ পুলিশের।

এর আগে ১৮ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা রাজ্যের একটি শপিং মলে বন্দুক হামলায় তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। এর আগে ৪ জুলাই শিকাগোতে বন্দুক হামলায় ৭ জন নিহত ও ৩৬ জন আহত হন।

দেশটিতে বন্দুক সহিংসতার সবচেয়ে ভয়াবহ ঘটনা ঘটে গত মে মাসে। নিউইয়র্কে একটি সুপারমার্কেটে ১০ কৃষ্ণাঙ্গকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। ওই মাসেই টেক্সাসে একটি প্রাথমিক স্কুলে ১৯ শিশু ও ২ শিক্ষক বন্দুক হামলায় মারা যান।

যুক্তরাষ্ট্রে চলতি বছর বন্দুক সহিংসতায় প্রাণ হারিয়েছেন ২৪ হাজার ৭৬৯ জন। এদের মধ্যে শিশুর সংখ্যা প্রায় ২০০। আর আহত হয়েছেন ২১ হাজার ৬২৫ জন। মার্কিন গণমাধ্যমের দাবি, দেশটিতে প্রতিদিন অন্তত ৫০টি বন্দুক সহিংসতার ঘটনা ঘটে।

সিলেট প্রতিদিন/ফাহিমা

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

%d bloggers like this: